↓↓↓ Video ↓↓↓


 

Erotica In Khajuraho Temple !! খাজুরাহো মন্দিরে ঘোড়ার মৈথুন দৃশ্যের আসল কারণ কী

Воспроизведение вашего видео начнется через 45

↓↓↓ Video ↓↓↓


 

0 Просмотры

খাজুরাহোর মন্দিরগাত্রে 'Erotica' বা মৈথুন ভাস্কর্য সম্পর্কে আমরা সবাই কমবেশি শুনেছি। অনেক বড় বড় গবেষক এগুলিকে 'হিন্দু সংস্কৃতিতে যৌনচর্চা'-র নিদর্শন হ...

Дата загрузки:2021-09-06T11:40:14+0000

↓↓↓ Video ↓↓↓


 

Издатель
খাজুরাহোর মন্দিরগাত্রে 'Erotica' বা মৈথুন ভাস্কর্য সম্পর্কে আমরা সবাই কমবেশি শুনেছি। অনেক বড় বড় গবেষক এগুলিকে 'হিন্দু সংস্কৃতিতে যৌনচর্চা'-র নিদর্শন হিসাবে চিহ্নিত করেছেন। কিন্তু এই ভাস্কর্যগুলি আসলে কি?

আজ এরকম একটি ভাস্কর্য নিয়ে আলোচনা করা যাক। এই ভাস্কর্যটি আপাতদৃষ্টিতে একটি 'পশুমৈথুন' -এর ভাস্কর্য। এখানে দেখা যায় এক ব্যক্তি একটি ঘোড়ার সাথে মৈথুনে রত। হ্যাঁ, আর পাঁচজন অজ্ঞ মানুষের না জানাই স্বাভাবিক, কিন্তু আশ্চর্যের কথা, বড় বড় স্কলাররাও একে এইভাবেই দেখেছেন। গাইডরাও রসিয়ে রসিয়ে দর্শনকারীদেরকে এইসব গল্প শোনায়...আর এইসব শুনে দর্শকেরা না দেখার ভাণ করে আড়চোখে চুপিচুপি দেখে মুচকি হাসে। কিন্তু সত্যিই কি এটির দ্বারা পশু মৈথুন চিত্রিত করা হয়েছে...?

আসুন পুরাণ থেকে আমরা একটা গল্প জেনে নিই। তারপর আমরা আবার মূল জায়গায় ফিরে আসবো।

সূর্যদেবের দুই স্ত্রী। প্রথম স্ত্রী ঊষা এবং দ্বিতীয়জন প্রত্যুষা (ছায়া)। ঊষার সন্তান যম এবং প্রত্যুষার সন্তান শনি। সূর্যদেব যমের প্রতি একটু বেশি দুর্বল ছিলেন। সেই কারণে, অত্যন্ত অভিমানী হয়ে ছায়া সূর্যের থেকে দূরে সরে সোজা সুমেরুর দিকে চলে যান। সুর্য থেকে নিজেকে লুকিয়ে রাখতে নিজে ঘোটকীর রূপ ধারণ করে সেখানে অবস্থান করেন। সূর্য তা জানতে পেরে ছায়াকে খুঁজতে খুঁজতে সুমেরু পর্যন্ত চলে যান এবং তাঁকে খুঁজে পেয়ে তার মানভঞ্জন করে এবং তাদের মিলন হয়। মিলনের ফলে ছায়ার দ্বিতীয় সন্তান রেবন্তের জন্ম হয়।

যারা শাস্ত্র-পুরাণের খোঁজ রাখেন না, তাদের কাছে তো এটা স্রেফ 'জঘন্য পশুমৈথুনের দৃশ্যমাত্র'। এসব দেখে দেখে অনেকেই ছি ছি করবেন, বহুসহস্রাব্দ- প্রাচীন হিন্দু সংস্কৃতিকে গালাগালি দেবেন। বলবেন প্রাচীন হিন্দুরা নাকি পশুমৈথুন করতেন ইত্যাদি। কিন্তু আসল সত্য যে তা নয়, কে বলবে সে কথা?
বলতে গেলে তো আগে পড়তে হবে। কিন্তু, শ্যামাপ্রসাদ-নোয়াখালি-বামজামানা-গান্ধীপরিবার-কথামৃত থেকে বড়জোর ভগবদগীতায় আটকে থাকা হিন্দুত্ববাদীরা কবে তাদের আলোচনার পরিসর বাড়াবে? চমস্কি আর দস্তয়েভস্কি পড়ে তো এসব জানা যাবে না।
Категория
Эротические фильмы
Комментарии выключены